প্রত্যেকটা হালাল সম্পর্কে থাকে আল্লাহর রহমত।

ভালবাসার গল্প
Razia Aktar Moni || 21 September, 2019 ! 10: 45 pm

রাসূল সাঃ ছিলেন ভীষণ রোমান্টিক একজন স্বামী। স্ত্রীদেরকে ভালোবাসার কথা অকপটে জানাতেন। রাতের বেলা আয়েশা রাঃ-কে নিয়ে ঘুরতে বের হতেন। হালকা গল্প করতেন। দু’জন একসাথে দৌড় প্রতিযোগিতা করতেন। হেরে গেলে পরেরবার আয়েশা রাঃ-কে হারিয়ে তার প্রতিশোধ নিতেন। আয়েশা রাঃ পাত্রের যে দিক থেকে পান করতেন উনিও সেখান থেকে পান করতেন। আয়েশা রাঃ হাড্ডির যে স্থান থেকে কামড় দিয়ে খেতেন।
মৃত্যুর ঠিক আগে আয়েশা রাঃ-এর ব্যবহার করা মিসওয়াক তিনি ব্যবহার করেছিলেন। দু’জনের লালা এক হয়ে গিয়েছিল। আর আয়েশা রাঃ-এর কোলে মাথা রেখেই তিনি আল্লাহর কাছে প্রত্যাবর্তন করেন।

স্ত্রীদের আদর করে ছোট ছোট নামে ডাকতেন তিনি। কখনো ভালোবেসে আলাদা একটা নামই দিয়ে দিতেন। আয়েশা রাঃ-কে আদর করে ডাকতেন ‘হুমাইয়ারা’ (লাল-সুন্দরী) নামে।

অনেকেই তাদের স্ত্রীকে আদর করে ‘ময়না-পাখি’, ‘জানু’- এসব নামে ডেকে থাকেন। তারা হয়তো জানেনও না যে, নিজের অজান্তেই তারা রাসূল সাঃ-এর একটি সুন্নাহ অনুসরণ করছেন।
রাসূল(স.) নিজের কাপড় নিজেই সেলাই করতেন, নিজেই নিজের কাপড় ধুতেন। স্ত্রীদেরকে ঘরের কাজে সাহায্য করতেন।এগুলোর সবই সুন্নাত!

প্রত্যেকটা হালাল সম্পর্কে থাকে আল্লাহর রহমত। প্রত্যেক স্ত্রীর রয়েছে স্বামীর থেকে উত্তম আচরন পাবার অধিকার। রাব্বুল আলামিন যেন সবার এই বন্ধুত্বপূর্ণ স্বামী স্ত্রীর সম্পর্ককে বরকতে পরিপূর্ণ করে দেন।
আমিন ❤️

Post Reads: 1385 Views