ছোট বেলার প্রেম তুমি পর্ব-২ | childhood love story- part-2

ভালবাসার গল্প
Imran Khan || 20 March, 2021 ! 10: 37 pm

#ছোট_বেলার_প্রেম_তুমি #childhood_love_story #part-2
মেয়েটিঃ কি সমস্যা পিছু নিচ্ছেন কেন?
আমিঃ আসলে i want to know your name. what’s your name?
মেয়েটিঃ আমার নাম জেনে কি করবেন
আমিঃ না এমনিই।
মেয়েটিঃ আমার নাম সিনথিয়া।
আমিঃ wow very nice name..
মেয়েটিঃ হইছে আর যেন পিছু না দেখি। good bye
বলেই হাটা ধরল। আমি পেছন থেকে ঢেকে বললাম
আমিঃ YOU ARE LOKING SO SO BEAUTIFUL..
সিনথিয়া পেছন ফিরে একবার তাকিয়ে আবার হাটতে লাগল। আমি ওখানেই দাড়িয়া রইলাম। ওর যাওয়া দেখছি।
হঠাৎ পেছন থেকে ধাক্কা দিল।
আমার ধ্যান ভাঙল।
রাকিবঃ কিরে কিছু জানতে পারলি? নাকি শাওনের মতোই করে ফেললি
আমিঃ ও কি করছে?
শাওনঃ আমি কি করছি তা জানতে হবেনা। তুই বল তুই কি করেছিস
আমিঃ মেয়েটার নাম হলো সিনথিয়া
শাওনঃ কিসে পড়ে বা থাকে কোথায়?
আমিঃ এইরে এইসব তো জিগাসা করা হয় নাই
রাকিবঃ তা হইব কেমনে দুইটাই বলদ। এই একটায় তো কথাই বলতে পারেনাই। তুরা দুইটা একেকটা আস্ত বলদ। আমার মতো হ। দেখছত প্রেম করে বিয়েও করে ফেলছি।
এমন সময়েই রাকিবের ফোনে কল আসল। ও রিসিভ করল। ওর হাসিমুখ ফ্যাকাসে হয়ে গেল। কথা শেষ হলো।
আমিঃ শালা তুর মতো হওয়ার ইচ্ছাও নাই আমার। এখন বুঝছ তো বউয়ের জ্বালা কত বড় জ্বালা
শাওনঃ শালা আমরা বলদ। তুই তো গাধা।
রাকিবঃ দেখ বউ জ্বালাইব ভালোবাসব এটাই তো সেরা। তুরা বুঝবিনা। যাহোক আমি বাসায় গেলাম।
আমিঃ হ যা আমরা আর থেকে কি করব আমিও যাই।
সবাই যে যার বাসায় চলে গেলাম।
বাসায় ডুকতেই আব্বুর সামনে পড়ে গেলাম।
আব্বুঃকি সেই তো আমার বাড়িতেই আসতে হইল। দিল না কেউ বাহিরে খাইতে??
আমিঃ আসছি বইলা ভাব নিওনা। আসছি কারন আমি যদি না আসি তাহলে তো তোমরা কেঁদে কেঁদে পুরা বাড়ি সমুদ্র বানিয়ে ফেলবে।
আব্বুঃ হইছে আর ডাইলগ দিওনা। তোমার মতো কত আইল গেল।
আমিঃ ধূর
বলেই নিজের রুমে চলে আসলাম।
গোছল করে খাওয়া দাওয়া করলাম।
তারপর মোবাইল গুতাইতে বসলাম। ফেসবুকে ডুকে সিনথিয়া লিখে সার্চ দিলাম। অনেক খুজেও মেয়েটার আইডিটা খুজে পাইনি।


পরদিন সকাল সকাল উঠে এসে রাস্তায় দাঁড়িয়ে রয়েছি। সিনথিয়া কে দেখলাম। পিছু পিছু কলেজের সামনে আসলাম।
এভাবে পিছু পিছু ঘুরতে লাগলাম।
একদিন,,,
রাকিবঃ কিরে কি অবস্থা সিনথিয়া আর তুর? পটিয়েছিস নাকি হুদাই পেছন পেছন ঘুরতাছত
আমিঃ আর বলিস না। পিছে তো ঘুরতেছি কিন্তু মেয়ে পাত্তা দিচ্ছে না।
রাকিবঃ তুরাও না। আমি হইলে এতদিনে মেয়েটাকে নিয়ে ডেটে চলে যাইতাম।
আমিঃ দেখ হুদাও আজাইরা কথা বলিস না। থাপরাইয়া গাল লাল বানিয়ে বাড়ি পাঠিয়ে দিব
রাকিবঃ পারলে মেয়েটাকে প্রপোজ করে দেখা।
আমিঃ করব কালকেই করব দেখিস তুই
রাকিবঃ আগে করে দেখা রে।



যাহোক পরদিন সকাল সকাল ঘুম থেকে উঠে ফুলের দোকান গেলাম। সেখান থেকে গোলাপ কিনে। কলেজ ছুটির অপেক্ষায় থাকলাম।।
কলেজ ছুটির পরেই মেয়েটার পিছু নিলাম। তারপর ফাকা রাস্তা আসতেই সিনথিয়ার সামনে গিয়ে দাড়াইলাম।
সিনথিয়াঃ আপনি
আমিঃ হুম আমি তোমার সাথে আমার কথা আছে।
সিনথিয়াঃ দেখুন এবার কিন্তু আমি কমপ্লেইন জানাতে বাধ্য হব। আপনি প্রতিদিন আমাকে ফলো করেন। আবার আজকে এসে পথ আটকে দাঁড়িয়েছেন।
আমিঃ আমার কথা তো শুনবা
সিনথিয়াঃ কি শুনব হ্যা? আপনি আমাকে ডিস্টার্ব করতেছেন( উত্তেজিত হয়ে)
আমিঃ দেখো তুমি উত্তেজিত হইওনা। আমাকে বলতে তো দিবা
সিনথিয়াঃ কি বলবেন যলদি বলেন
আমি হাটু গেড়ে বসে ফুল গুলো এগিয়ে দিয়ে বললাম।
সিনথিয়া আমি তোমাকে ভালোবাসি। শুধু ভালোবাসি তা না অনেক বেশি ভালবাসি। সেদিন প্রথম তোমাকে দেখেই এত ভালো লেগে যায়। তোমাকে না দেখলে হয়তো বুঝতামই না যে এক দেখাতেও কাউকে ভালোবাসা যায়। দিন রাত খাইতে শুইতে সব জায়গায় শুধু তুমি আর তুমি। তোমাকে ছাড়া কিছু বুঝিনা। আনমনে তোমাকে নিয়ে ভাবতে থাকি। পারব না আমি থাকতে তোমাকে ছাড়া। I LOVE YOU.. I LOVE YOU SO MUCH…
সিনথিয়া কিছু না বলেই হাটা ধরল। কিছু বুঝলাম না। আমি ওর হেটে যাওয়া দেখতেছি। একবারও পিছু ঘুরে তাকাল না।
আমি কি করব ভেবে পাচ্ছিলাম না। এমন সময় রাকিব কাধে হাত দিল।
রাকিবঃ মন খারাপ করিস না। চল
আমিঃ কোথায় যাব
রাকিবঃ বাড়ি যাব। এ মেয়ের দ্বারা হবেনা।
আমিঃ কি বলিস
রাকিবঃ হুম। যদি কিছু হইতো তাহলে অন্তত ফুলগুলো নিয়ে যাইতো।
আমিঃ নেয়নাই তো কি হইছে ওর চোখে আমার জন্য ভালোবাসা দেখেছি।
রাকিবঃ দেখেছিস ভালো করেছিস এখন চল।।
আমিঃ
পরে বাসায় চলে গেলাম।।
রাতের বেলা শুয়ে আছি। সিনথিয়ার কথা ভাবতেছি। কেন ফুল নিল না। ভালো না বাসুক ফুলগুলো তো অন্তত নিতে পারত। যেভাবেই হোক ওরে আমার চাই চাই চাই। মেয়েটার চাহনি আমাকে পাগল করে দেয়। মায়াবী চোখ মায়াবী চেহাড়া কি রেখে কিসের কথা বলব। ওরেই আমার লাগবে। বিয়ে যদি করি ওরেই করব।


যাহোক পরদিন আবারও,,
আমিঃ সিনথিয়া দাড়াও
ও দাড়াচ্ছে না। ওর পিছু পিছু ওর বাসা পর্যন্ত চলে গেলাম। ও আমার কথা শুনলই না ।
বিকালবেলা,,,
রাকিবঃ কি খবর??
আমিঃ আর খবর। মেয়ে তো পাত্তাই দিচ্ছেনা
রাকিবঃ ছেড়ে দে তাইলে
আমিঃ না। এই মেয়েকে আমি চাই
ওইদিন রাতেই আমি অসুস্থ্য হয়ে যাই। জ্বর চলে আসছিল।
যার কারনে দুদিন বাসা থেকে বেড় হতে পারলাম না।
দুদিন পর,,,
কলেজ ছুটির পর আবারও সিনথিয়ার সামনে গিয়ে দাড়াইলাম।
বরাবরের মতো আজকেও সিনথিয়া আমাকে পাশ কাটিয়ে চলে গেল। আমি পিছু নিলাম।
কিছুদূর যাওয়ার পর সিনথিয়া থামল।
আমিও থামলাম।
সিনথিয়াঃ গত দুদিন কোথায় ছিলেন?
আমিঃ অসুস্থ্য ছিলাম।
সিনথিয়াঃ ওহ। এখন শরীর ঠিক আছে?
আমিঃ হুম।।
দুজন নিশ্চুপ
আমিঃ Actually সিনথিয়া বিশ্বাস করো আমি সত্যি তোমাকে ভালোবাসি।
সিনিথিয়াঃ কিন্তু আমি বাসিনা
আমিঃ ভালোবাসবা না?
সিনথিয়াঃ নাহ। আপনাকে আমি কেন ভালোবাসতে যাব। দয়া করে আমাকে ডিস্টার্ব করা বাদ দিন
আমিঃ ওকে। ওকে। আমি তোমাকে ডিস্টার্ব করি তাই না? যাও আজ থেকে আর করব না। ভালো থেকো সুখে থেকো
বলেই ও হাটা ধরলাম
হঠাৎ কেউ একজন পেছন থেকে হাত ধরল। আমি পিছনে ঘুরতেই আমাকে জড়িয়ে ধরল। আমি শকড হয়ে গেলাম।
সিনথিয়াঃ আমার মন চুরি করে এখন ভাব নিয়ে চলে যাওয়া হচ্ছে। সয়তান কুত্তা গরু
আমি বুঝতে পেরে আমিও সিন থিয়া কে জড়িয়ে ধরলাম।
লেখকঃ Arian Sumon

TO be continue…
ছোট বেলার প্রেম তুমি পর্ব-৩

Comments

Post Reads: 1573 Views